৮ হাজার চিকিৎসক-নার্স নিয়োগ হচ্ছে

করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে স্বাস্থ্যসেবায় গতি বাড়াতে আরও দুই হাজার চিকিৎসক ও ছয় হাজার নার্স নিয়োগ দেবে সরকার।

বৃহস্পতিবার স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের নিয়মিত সংবাদ বুলেটিনে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক এই তথ্য জানান।

তিনি বলেন, “বিভিন্ন হাসপাতালে রোগীদের সেবা দিতে গিয়ে বেশ কিছু চিকিৎসক-নার্স এবং স্বাস্থ্যকর্মী কোভিড-১৯ আক্রান্ত হয়েছেন। এজন্য ২ হাজার নতুন ডাক্তার এবং ৬ হাজার নতুন নার্স আমরা নিয়োগ দেওয়ার প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে।”

কোভিড-১৯ মহামারীর এই সঙ্কটে এই নিয়োগের মাধ্যমে স্বাস্থ্যসেবা আগামীতে আরও জোরদার হবে বলে আশা করছেন তিনি।

জাহিদ মালিক বলেন, “যেহেতু কোভিড-১৯ চিকিৎসার জন্য আমরা নতুন নতুন হাসপাতাল তৈরি করছি, এছাড়া কিছু ডাক্তার-স্বাস্থ্যকর্মীদের কোয়ারেন্টিনে যেতে হয়েছে, সেজন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনায় ২ হাজার নতুন ডাক্তার এবং ৬ হাজার নতুন নার্স আমরা নিয়োগ দিচ্ছি।”

সুরক্ষার অভাবের সঙ্গে রোগীদের তথ্য গোপন, ঝুঁকিতে স্বাস্থ্যকর্মীরা

বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশেনের হিসেবে, কোভিড-১৯ সংক্রমণ শুরু হওয়ার পর বৃহস্পতিবার পর্যন্ত সারাদেশে ২১৫ জন চিকিৎসক, ৬৬ জন নার্স এবং ১৮৮ স্বাস্থ্যকর্মী আক্রান্ত হয়েছেন।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের হিসাবে, দেশে চিকিৎসকসহ প্রথম, দ্বিতীয়, তৃতীয় ও চতুর্থ শ্রেণির কর্মকর্তা-কর্মচারী আছেন ৭৮ হাজার ৩০০ জন। এরমধ্যে চিকিৎসক পদে রয়েছেন ২৭ হাজার ৪০৯ জন।

বাংলাদেশ নার্সিং অ্যান্ড মিডওয়াইফারি কাউন্সিল, বিডিএমসির হিসাবে দেশে রেজিস্টার্ড নার্সের সংখ্যা ৫৬ হাজার ৭৩৪ জন।

বাংলাদেশের ১ হাজার ৫৮১ জন মানুষের জন্য ১ জন রেজিস্টার্ড চিকিৎসক। প্রতি ১০ হাজার মানুষের জন্য চিকিৎসক ৬ দশমিক ৩৩ জন। প্রতি ১০ হাজার মানুষের জন্য স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের আওতায় চিকিৎসকের সংখ্যা ১ দশমিক ২৮ জন।

প্রতি ১০ হাজার মানুষের জন্য মেডিকেল টেকনোলজিস্ট আছেন মাত্র শূন্য দশমিক ৩২ জন।