৫৪ মিনিটে ৭ উইকেট কিভাবে পড়ে? প্রশ্ন গাভাস্কারের

সিরিজের তৃতীয় টেস্টে ইংল্যান্ডের কাছে সাড়ে তিন দিনে ইনিংস ব্যবধানে হেরেছে ভারত। এই হারের পর যথারীতি শুরু হয়েছে সমালোচনা। অলি রবিনসনের ইনসুইংয়ে চেতেশ্বর পুজারা এলবিডাব্লিউ হতেই সুনীল গাভাস্কার অনুমান করেছিলেন, চতুর্থ দিনেই ম্যাচ শেষ হয়ে যাবে। ভারত শেষ ৭ উইকেট হারায় মাত্র ১৬ ওভারে। এতে সময় লেগেছে ৫৪ মিনিট। ব্যাটিং পিচে এভাবে ভারতীয় দলকে আত্মসমর্পণ করতে দেখে হতাশ কিংবদন্তি ওপেনার।

গাভাস্কার মনে করেন, লর্ডসে ভারতের নিচের সারির ব্যাটসম্যানদের দুঃসাহসিক লড়াই সম্ভব হয়েছিল প্রতিপক্ষের ভুল পরিকল্পনার ফলে। তা না করলে কোনোভাবে দ্বিতীয় টেস্টও জিততে পারত না ভারত। ম্যাচ শেষে সম্প্রচারকারী চ্যানেলকে গাভাস্কার বলেছেন, ‘লর্ডসে প্রতিপক্ষের ভুল সিদ্ধান্তের জন্য আমরা ম্যাচে ফিরে এসেছিলাম। প্রথম ৩ উইকেট পড়ার পরে কখনও মনে হয়নি ম্যাচে আমরা ফিরতে পারি। কিন্তু হেডিংলিতে মাত্র ৫৪ মিনিটে ৭ উইকেট হারানোর ঘটনা মানা যাচ্ছে না। সত্যিই এই বিপর্যয় ভাবতে পারছি না।’

ভারতীয় অধিনায়ক বিরাট কোহলিও দলের আত্মসমর্পণে হতাশ। দ্বিতীয় ইনিংসে ৫৫ রান করলেও তিনি আউট হয়েছেন স্লিপে ক্যাচ দিয়ে। ৬৩ রানে শেষ আট উইকেটের পতন হয়েছে। কোহলি বলেছেন, ‘স্কোরবোর্ড দেখে চাপে পড়ে গিয়েছিল দল। আমরা জানতাম ৮০ রানের বেশি করতে পারিনি। সেই পরিস্থিতি থেকে ম্যাচে ফিরে আসতেই হবে। কিন্তু সেটাই সম্ভব হয়নি। তৃতীয় দিন দুটি বড় জুটি আমাদের ম্যাচের মধ্যে রেখেছিল। কিন্তু চতুর্থ দিন সকাল থেকে প্রতিপক্ষ বোলাররা চাপ বাড়াতে থাকে। আমরাও সেই চাপ সামলাতে ব্যর্থ হই।’