স্টিভ ওয়াহকে টপকে ক্লাইভ লয়েডের পাশে নাম লেখালেন কোহলি

অধিনায়ক হিসেবে অস্ট্রেলিয়ান কিংবদন্তি স্টিভ ওয়াহকে পেছনে ফেলে দিলেন বিরাট কোহলি। ঘরের মাঠে ৩৬ টেস্ট জিতে সাবেক ওয়েস্ট ইন্ডিজ অধিনায়ক ক্লাইভ লয়েডকে স্পর্শ করলেন তিনি। ইংল্যান্ডের বিরিদ্ধে সিরিজের শেষ টেস্ট ম্যাচ জয়লাভ করে আগামী জুনে নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে লর্ডসে টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালে খেলবে ভারত। এই জয়ের ফলে আবারও এক নম্বর টেস্ট দলের শিরোপা ফিরে পেল টিম ইন্ডিয়া। ব্যাট হাতে সেরা ছন্দে না থাকলেও দলগত পারফরম্যান্সে দারুণ খুশি হওয়ার কারণ আছে বিরাট কোহলির।

ম্যাচ শেষে কোহলি বলেন, আমি গর্বিত এমন একটা দলের অধিনায়ক হতে পেরে। অস্ট্রেলিয়াতে প্রথম টেস্টে লজ্জার হারের পর কী হয়েছিল শেষ পর্যন্ত সকলে জানেন। চেন্নাইতেও ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে প্রথম টেস্টে বড় ব্যবধানে হার। বাকি তিনটে ম্যাচের ফলের দিকে তাকান। উত্তর পেয়ে যাবেন।

ভুল কথা বলেননি বিরাট। এই ভারতীয় দলটা গর্ব করার মত। পন্থ থেকে শুরু করে ওয়াশিংটন, অক্ষর প্যাটেল থেকে শুরু করে সিরাজ। রান না পেলেও বলতে হবে শুভমান গিলের কথা। অভিজ্ঞ রোহিত শর্মা এবং অশ্বিনের দাপট। সব মিলিয়ে অপ্রতিরোধ্য টিম ইন্ডিয়া। রিজার্ভ বেঞ্চ বিচার করলে এই মুহূর্তে ভারতীয় দলের থেকে গভীরতা বেশি নেই অন্য কোনও দলের।

কোহলি আরও বলেন, কোনও জয় সহজে আসে না। বিদেশ হোক বা ঘরের মাঠ, বিপক্ষকে হারাতে গেলে নিজেদের সেরাটা উজাড় করে দিতে হয়। পন্থ এবং ওয়াশিংটনের পাশাপাশি দুই স্পিনার অক্ষর এবং অশ্বিনের প্রশংসা করলেন তিনি। পাশাপাশি মনে করিয়ে দিলেন চেন্নাইয়ে রোহিত শর্মার শতরানের রানের ইনিংসটা না হলে ভারতের এই কামব্যাকের সূচনা হত না।

ভারত অধিনায়ক হিসেবে ওয়ার্ল্ড টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ খেলতে পারাটা গর্বের ব্যাপার মনে করেন বিরাট কোহলি। তবে এই ব্যাপারটা এতদিন কিছুটা হলেও মানসিকভাবে ক্রিকেটারদের ফোকাস নষ্ট করেছে মনে করেন তিনি। অবশেষে শান্তি। তিনি জানালেন, একদিনের ক্রিকেটের সেরা পুরস্কার যেমন বিশ্বকাপ, তেমনই টেস্ট ক্রিকেটের সেরা সম্মান ওয়ার্ল্ড টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ।