সিনিয়ররা চিরকাল দলে থাকবে না : ডমিঙ্গো

২০২৩ বিশ্বকাপের কথা মাথায় রেখে শ্রীলঙ্কাসহ অন্যান্য ওয়ানডে সিরিজে তরুণদের তৈরি করে তুলতে কাজ করছে বাংলাদেশ দল। কারণ দুই তিন বছরের মধ্যে দলে থাকবেন না সিনিয়ররা। বাংলাদেশের প্রধান কোচ রাসেল ডমিঙ্গো বলেছেন, শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ঘরের মাঠে সিরিজ জয়ের ব্যাপারে তার শিষ্যরা কোনো ছাড় দেবে না। কারণ ২০২৩ সালের ওয়ানডে বিশ্বকাপের সরাসরি খেলার যোগ্যতা অর্জনের জন্য সিরিজ জয় খুব বেশি গুরুত্বপূর্ণ।

টাইগাররা এই সিরিজ থেকে যথাসম্ভব পয়েন্ট সংগ্রহের দিকে জোর দিয়েছে। কারণ বিদেশের মাটিতে হওয়া সিরিজ থেকে খুব বেশি পয়েন্ট সংগ্রহ করতে পারে না তারা। তবে সিরিজ জয় করা গুরুত্বপূর্ণ। ডমিঙ্গো বলছেন, দেশের ক্রিকেটের ভবিষ্যতের কথা বিবেচনা করে দলে তরুণদের ফিট করাও অত্যন্ত জরুরি, ‘আমাদের দলে মুশফিক-রিয়াাদ-তামিম ও সাকিবের মত অভিজ্ঞ খেলোয়াড় আছে। তবে সবসময় তরুণ খেলোয়াড়দের সুযোগ দেওয়া দরকরা। সিনিয়রা চিরকাল দলে থাকবে না। আশা করি, আফিফের মতো খেলোয়াড় এই সিরিজে প্রভাব ফেলতে পারবে।’

সুুপার লিগের অংশ হিসেবে দুই সিরিজে ৩০ পয়েন্ট পেয়েছে বাংলাদেশ। ওয়েস্ট ইন্ডিজকে তিন ম্যাচের সিরিজে হোয়াইটওয়াশ করার পর, নিউজিল্যান্ডের মাটিতে একই ব্যবধানে হারতে হয়েছে। সুপার লিগের পয়েন্ট টেবিলে বাংলাদেশের স্থান ৬ নম্বরে। ডমিঙ্গো বলেন, ‘আমাদের ব্যাটিং লাইন-আপ কী হতে চলেছে বিশ্বকাপের ছয় মাস আগে তা নিশ্চিত করতে হবে। এই সিরিজগুলো জয়ের জন্য অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ। আগামী দুই বছরের মধ্যে আপনার ব্যাটিং লাইন আপ কেমন হবে তা চূড়ান্ত করতে হবে।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমরা সেরা দল বলতে যা বুঝি, সে পর্যায়ে যেতে আমাদের স্মার্ট হতে হবে। মহামারীর কারণে এই মুহূর্তে একটি বড় স্কোয়াড় রাখতে হচ্ছে। এতে অনুশীলন ও ওয়ার্ম-আপে তরুণদের দিকে নজর দেওয়া যায়। হয়তো দুই বছরের মধ্যে আমাদের সাকিব-তামিম-রিয়াদ বা মুশফিক থাকবে না। আমাদের নিশ্চিত করতে হবে যে, আমরা এমন কিছু খেলোয়াড় তৈরি করব যারা পরের প্রজন্ম হিসেবে নিজেদের মেলে ধরতে পারবে।’