শ্রীলেখার ওপর চড়াও রিমঝিম মিত্র

কলকাতার রাজনীতির অঙ্গন আর বিনোদনের জগৎ মিলেমিশে এ বছরের বিধানসভা নির্বাচনে। মানুষের জন্য কাজ করার হিড়িক এ বছর নির্বাচনে সবুজ এবং গেরুয়া শিবিরে শুধুই যেন তারকা প্রার্থীর ছড়াছড়ি। বলা যায় নক্ষত্রখচিত এ বছরের প্রার্থী তালিকা। ভোল পাল্টিয়ে ফুল বদলের এই খেলা নিয়ে মিমের ছড়াছড়ি সোশ্যাল সাইটে। সাধারণ মানুষ প্রশ্ন তুলেছে মানুষের জন্য কাজ করতে হলে কি রাজনীতির রংটা গায়ের লাগানো জরুরি? তার মধ্যে আবার আছে ভোটে টিকিট না পাওয়ার অসন্তোষ।

এর মধ্যেও অন্য রকম নিদর্শন সাংসদ ও অভিনেতা দেব। রাজনীতির রংয়ের বাইরেও যিনি লকডাউনের সময় থেকে এ যাবৎ অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছেন করেছেন তাদের স্বপ্ন পূরণ। মুখোশের এই খেলা নিয়ে বারবার মজাদার ছবি এবং মন্তব্য করেছেন অভিনেতা অঙ্কুশ হাজরা। ‘আমার দ্বারা শুধু হাউজ পাওরি হবে’ কিংবা ‘ দোলেই গায়ে রং লাগাবো’ ধরনের তির্যক মন্তব্য যে তিনি করেছেন তার বিভিন্ন সহ অভিনেতাদের তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না।

তবে এবার চাঞ্চল্যকর তথ্য দিয়ে বাকযুদ্ধে জড়ালেন অভিনেত্রী শ্রীলেখা মিত্র। কয়েকদিন আগেই হওয়া বা ব্রিগেডে যাবার আগে অভিনেত্রী তার মধ্যমায় নেলপালিশে, কাস্তে হাতুড়ি চিহ্ন এঁকে সেই আঙ্গুল তুলে দেখান। তা নিয়ে জল ঘোলা হয় সোশ্যাল সাইটে। এবার তিনি লিখলেন বিজেপিতে যোগ দেওয়ার জন্য তারকা প্রার্থীরা ৭ লক্ষ টাকা করে পেয়েছেন।

আর এই মন্তব্যের পরই কমেন্ট বক্সে তাঁর কাছে সহ অভিনেত্রী রিমঝিম মিত্র জানতে চান কাকে এই টাকা দেওয়া হয়েছে? অভিনেত্রী শ্রীলেখা মিত্র জানান প্রমাণসহ তিনি তার নাম জানিয়ে দেবেন। তখন রিমঝিম মিত্র কিছুটা হুমকির সুরেই বলেন যদি প্রমাণ না দিতে পারেন শ্রীলেখা তাহলে ভারতীয় জনতা পার্টি আইনি পদক্ষেপ নেবে এমন মন্তব্য করার জন্য। রিমঝিমকে সমর্থন করেছেন আরেক অভিনেত্রী রূপা ভট্টাচার্য। শ্রীলেখা মিত্রর কমেন্ট সেকশন থেকে একথা স্পষ্ট, অভিনেত্রী শ্রীলেখারই পাশে রয়েছেন বেশিরভাগ মানুষ।

লাল-নীল-গেরুয়া…! ‘রঙ’ ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা ‘খাচ্ছে’? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম ‘সংবাদ’! ‘ব্রেকিং’ আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে ‘রঙ’ লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে ‘ফেক’ তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই ‘ফ্রি’ নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.কলকাতা২৪