শক্তিশালী দল না থাকলে সরকার দুর্বল হয়: মির্জা আজম

আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মির্জা আজম বলেছেন, শক্তিশালী দল না থাকলে সরকার দুর্বল হয়। কাজেই আওয়ামী লীগকে আরও বেশি সাংগঠনিকভাবে শক্তিশালী করতে হবে। মেয়াদোর্ত্তীণ সব শাখায় সম্মেলনের মাধ্যমে নেতৃত্ব বের করে আনতে হবে।

আজ দুপুরে রাজধানীর লালবাগ থানা আওয়ামী লীগের উদ্যোগে এক হাজার পরিবারকে ঈদ সামগ্রী বিতরণ অনুষ্ঠানে তিনি একথা বলেন।

লালবাগ থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জামাল হোসেনের সভাপতিত্বে আরও বক্তব্য রাখেন আওয়ামী লীগের দফতর সম্পাদক ব্যরিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব আবু আহমেদ মন্নাফী, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হুমায়ুন কবির প্রমুখ। মহানগর আওয়ামী লীগ নেতাদের মধ্যে আব্দুর সাত্তার মাসুদ, কাজী মোর্শেদ হোসেন কামাল, মিরাজ হোসেন, মহিউদ্দিন মহি, আক্তার হোসেন, গোলাম সারোয়ার কবির, এফ এম শরিফুল ইসলাম, আব্দুল মতিন ভুইয়া, রাকিবুল হাসান সোহেল, আনিছুর রহমান সরকার প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

মির্জা আজম বলেন, ঢাকা বিভাগে সবচেয়ে দুর্বল সংগঠন ঢাকা মহানগর। সম্মেলনের কোনো চর্চা না থাকায় মহানগরের নেতাকর্মীদের মধ্যে এক ধরনের জড়তা চলে এসেছে। আমরা সচল করার চেষ্টা করছি। ওয়ার্ড কমিটি, ইউনিট কমিটি গঠনের নিদের্শনা দিয়েছিলাম। কিন্তু কাজ হয়নি। আজকে লালবাগ থানায় পূণার্ঙ্গ কমিটি নেই। এটা দুঃখজনক।

করোনাকালে সবাই স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার আহ্বান জানিয়ে সাবেক প্রতিমন্ত্রী মির্জা আজম বলেন, সবাই স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে। জনসচেতনতাই পারে আমাদের করোনা থেকে রক্ষা করতে। মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক করতে হবে।

টিকা নিয়ে বিএনপি রাজনীতি করছে মন্তব্য করে আওয়ামী লীগের এ সাংগঠনিক সম্পাদক বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সফল কূটনৈতিক প্রচেষ্টায় আমরা টিকা সংগ্রহ করতে পেরেছি। যে সময় অনেক ধনী দেশগুলো টিকার জন্য হাহাকার করছিল। এখন অনেক দেশ থেকে টিকা এনে গণটিকা কার্যক্রম শুরু হয়েছে। কিন্তু বিএনপি সরকারকে সাধুবাধ না জানিয়ে মিথ্যাচার ও মানুষকে বিভ্রান্ত করছে।