মেহজাবিনের চাঁদরাতের খুশি, ছড়াল ভক্তদের অলিন্দে

ঈদের আনন্দ ঘরে বইছে। যদিও করোনা তাণ্ডব চালিয়ে গোটা বিশ্বের মতো উপমহাদেশকে বিপর্যস্ত করে ফেলেছে তারপরে ঈদ এসেছে, মনে আনন্দ বইছে। ঈদে তারকাদের জীবনেও ঈদ আসে, তবে তা ভিন্নভাবে। কেননা দেশের শোবিজ অঙ্গন ঈদের মাসখানেক আগে থেকেই ব্যস্ত থেকে ঈদ অনুষ্ঠানমালা নির্মাণে। যার অবিচ্ছেদত অংশ শোবিজ তারকারা।

তবে এবারের চেহারাটা ভিন্ন অনেক অভিনয়শিল্পীরাই এবার ক্যামেরার সামনে দাঁড়াননি। ঈদের অনেক নাটকেও দেখা যাবে না অনেক পরিচিত মুখকে। তবুও ঈদ তো এসেছে। হয়তো আনন্দ তো করতেই হবে। এবারের ঈদে মেহজাবিন বলছেন, সেই অর্থে তার নাটক নেই। গণমাধ্যমকে জানাচ্ছেন করোনার কারণে ঈদের নতুন কোনো নাটকে তিনি অভিনয় করেননি।

টেলিভিশন পর্দায় দেখা যাবে না তাই বলে কি আনন্দ থাকবে না। ঈদের আগের রাতের আনন্দ তো অন্যরকম, কেমন? মেহজাবিন ফেসবুকে নিজের চাঁদরাত এর খুশি প্রকাশ প্রকাশ করেছেন। চারটি ছবি কোলাজ করে নিজের চেহারার অভিব্যক্তি প্রকাশ করেছেন এই অভিনেত্রী। এই অভিব্যক্তিতে প্রতিক্রিয়া প্রকাশ করেছেন প্রায় আড়াই লাখ মানুষ। যার মধ্যে ১ লাখ ১০ হাজার ‘লাভ’ বা ভালোবাসা মিশ্রিত প্রতিক্রিয়া। স্বাভাবিকভাবেই বলা যায় মেহজাবিনের চাঁদরাতের খুশির সঙ্গে শুধু তিনিই নন, ভক্তরাও খুশি হয়েছেন। ছড়িয়েছে হৃদয়ে, অলিন্দে।

মেহজাবিনের পৈতৃক নিবাস চট্টগ্রামে। শৈশবে বেড়ে উঠেছেন সংযুক্ত আরব আমিরাতে। মেহজাবিন শান্ত-মারিয়াম বিশ্ববিদ্যালয়ের ফ্যাশন ডিজাইনিঙের ছাত্রী ছিলেন। ও লেভেলে পড়াশুনা করার সময় তিনি লাক্স সুন্দরী নির্বাচিত হন। পাঁচ ভাই-বোনের মধ্যে তিনি সবার বড়।

‘লাক্স-চ্যানেল আই সুপারস্টার ২০০৯’ প্রতিযোগিতায় চ্যাম্পিয়ন হওয়ার পর মেহজাবিন অভিনীত প্রথম নাটক ছিল ইফতেখার আহমেদ ফাহমি পরিচালিত ‘তুমি থাকো সিন্ধুপারে’। এ নাটকে তার বিপরীতে অভিনয় করেছেন মাহফুজ আহমেদ। এরপর তিনি একে একে কাজ করেন ‘মাঝে মাঝে তব দেখা পাই’, ‘কল সেন্টার’, ‘মেয়ে শুধু তোমার জন্য’, ‘আজও ভালোবাসি মনে মনে’, ‘হাসো আন লিমিটেডসহ’ বেশকিছু নাটকে। ২০১৩ তে শিখর শাহনিয়াত পরিচালিত নাটক ‘অপেক্ষার ফটোগ্রাফি’ ছিল মেহজাবিন এর জন্য বড় একটি টার্নিং পয়েন্ট।

ঈদুল আযহা ২০১৭-এ মিজানুর রহমান আরিয়ানের পরিচালনায় বড় ছেলে’তে অভিনয় করে আবারও শীর্ষে চলে আসেন এই অভিনেত্রী। দেশ-বিদেশে ব্যাপক প্রশংসিত হয় মেহজাবিন ও জিয়াউল ফারুক অপূর্ব অভিনীত এই নাটকটি ২০২০ সালে এই অভিনেত্রী নাম লিখিয়েছেন গল্পকার হিসেবে। ‘থার্ড আই’ তার লেখা প্রথম নাটকের গল্প।