মধ্যবর্তী নির্বাচনের সুযোগ নেই : সেতুমন্ত্রী

ওবায়দুল কাদের

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, গণতন্ত্রকে প্রাতিষ্ঠানিক রুপদানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকার নিরলসভাবে কাজ করছে। কিন্তু বিএনপি জনগণের মনের ও চোখের ভাষা বুঝতে পারে না,এটাই তাদের ব্যর্থতা।
আজ সোমবার সকালে সংসদ ভবন এলাকায় তাঁর সরকারি বাসভবনে সমসাময়িক বিষয় নিয়ে আয়োজিত আনলাইন সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন।
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সরকার গণতন্ত্রকে শক্তিশালীকরনের পাশাপাশি গণতন্ত্রকে প্রাতিষ্ঠানিক রুপদানে নিরলস ভাবে কাজ করে যাচ্ছেন উল্লেখ করে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘এখন যে কোন সিদ্ধান্ত গ্রহণে সম্পৃক্ত করা হচ্ছে জনগণকে। কিন্তু বিএনপি জনগণের মনের ও চোখের ভাষা বুঝতে না পারাই তাদের মূল ব্যর্থতা।’
তিনি বলেন, সাম্প্রতিককালে উপ-নির্বাচন নিয়ে বিএনপি অন্ধকারে ঢিল ছুঁড়ছে, তাদের বিরোধিতা আর মিথ্যাচার এখন অস্থিমজ্জার অংশ হয়ে গেছে। কোন ইস্যুতে বিএনপি স্থির নয়, মাঠের রাজনীতিকে তারা এখন ফেসবুকের মাধ্যমে ব্যবহার করছে।
তিনি বলেন, বিএনপির রাজনীতি এখন বহুদূর থেকে ভেসে আসা। সংবিধান অনুযায়ী যথাসময়ে নির্বাচন হবে, মধ্যবর্তী নির্বাচনের কোন সুযোগ নেই।
কোন অগণতান্ত্রিক পথে ক্ষমতায় যাওয়া চেষ্টা করলে জনগণ তা প্রতিহত করবে জানিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, ষড়যন্ত্র ও অস্থিরতা তৈরিতে বিনিয়োগ না করে জনগণের পাশে থাকুন। ক্ষমতায় যাওয়ার জন্য কোন অগণতান্ত্রিক পথ বেছে নেবেন না।
নির্বাচন কমিশন একটি সাংবিধানিক প্রতিষ্ঠান, এ প্রতিষ্ঠান স্বাধীনভাবে কাজ করছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, কমিশনকে শক্তিশালী করতে সকল রাজনৈতিক দলের সহযোগিতা প্রয়োজন। ঢালাও সমালোচনা না করে গঠনমূলক অভিযোগ দিলে কমিশন নিশ্চয়ই ব্যবস্থা নিবে।
সেতুমন্ত্রী বলেন, উপ-নির্বাচনের ফলাফল প্রত্যাক্ষাণ করে বিএনপি হরতালের ডাক দিয়েছে। জনরায়ের বিরুদ্ধে বিএনপি কর্মসূচি দিয়েছে, কিন্তু কর্মসূচির নামে জনগণের শান্তি ও স্বস্তি নষ্ট করলে জনগণকে সাথে নিয়ে তা প্রতিহত করবে আওয়ামী লীগ।