ভিয়েনা সংলাপের প্রতি সমর্থন ঘোষণা ন্যাটোর শীর্ষ নেতাদের

ভিয়েনায় ইরানের পরমাণু সমঝোতা পুনরুজ্জীবনের চলমান ধারাবাহিক সংলাপের প্রতি সমর্থন ঘোষণা করা হয়েছে মার্কিন নেতৃত্বাধীন পশ্চিমা সামরিক জোট- ন্যাটোর শীর্ষ সম্মেলন থেকে। অবশ্য আমেরিকা এই সমঝোতা থেকে বেরিয়ে যাওয়ার কারণেই যে এ সংক্রান্ত অচলাবস্থা দেখা দিয়েছে সে বিষয়টি ন্যাটো এড়িয়ে গেছে।

ব্রাসেলসে ন্যাটো জোটের শীর্ষ নেতাদের দুই দিনব্যাপী সম্মেলনের প্রথম দিনের বিবৃতিতে বলা হয়েছে, এই জোট ভিয়েনা সংলাপের প্রতি সমর্থন জানাচ্ছে।
এতে আরো বলা হয়েছে, “ইরান ও আমেরিকাকে পরমাণু সমঝোতার প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়নে পুরোপুরি ফিরিয়ে আনার লক্ষ্যে ভিয়েনায় পাঁচ জাতি-গোষ্ঠীর সঙ্গে ইরানের এবং সেই সঙ্গে আমেরিকার সাথে আলাদা যে সংলাপ চলছে তার প্রতি সমর্থন ঘোষণা করছি।”

ব্রাসেলসে সোমবার ন্যাটো জোটের শীর্ষ সম্মেলন শুরু হয়েছে এবং তা মঙ্গলবার শেষ হওয়ার কথা রয়েছে।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন দাবি করছেন, তিনি ভিয়েনা সংলাপের মাধ্যমে তার দেশকে পরমাণু সমঝোতায় ফিরিয়ে আনতে চান।

এদিকে রাশিয়া বলেছে, ইরান ও আমেরিকার কাছে গুরুত্বপূর্ণ কিছু বিষয়ের সমাধান না হওয়ার কারণে ভিয়েনায় পরমাণু সমঝোতা পুনরুজ্জীবনের চলমান সংলাপের ব্যাপারে কোন ভবিষ্যদ্বাণী করা কঠিন হয়ে পড়েছে। ভিয়েনা সংলাপে রুশ প্রতিনিধিদলের প্রধান মিখাইল উলিয়ানোভ গত শুক্রবার রাশিয়ার বার্তা সংস্থা স্পুৎনিককে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে এ মন্তব্য করেন।

তিনি বলেন, ইরান ও আমেরিকার কাছে খুবই গুরুত্বপূর্ণ কিছু বিষয় এখনও অমীমাংসিত রয়েছে। ভিয়েনা সংলাপ থেকে ফলাফল বের করার জন্য সব পক্ষের মধ্যে দৃঢ় প্রত্যয় রয়েছে। কাজেই এ সম্পর্কে আশাবাদী হওয়ার যথেষ্ট কারণ রয়েছে এবং সে ফল পাওয়ার জন্য অপেক্ষা করা ছাড়া অন্য কোন উপায় নেই।

বাইডেন প্রশাসনের কর্মকর্তারা বহুবার ইরানের বিরুদ্ধে আমেরিকার কথিত ‘সর্বোচ্চ চাপ প্রয়োগের’ নীতি ব্যর্থ হয়েছে বলে স্বীকার করেছেন। কিন্তু তারা ইরানের পরমাণু সমঝোতায় ফিরে আসার ব্যাপারে নিজেদের সদিচ্ছা প্রমাণ করতে ব্যর্থ হয়েছেন। পরমাণু সমঝোতা পুনরুজ্জীবনের লক্ষ্যে ভিয়েনায় গত এপ্রিল থেকে এ পর্যন্ত পাঁচ দফা আলোচনা কোন ফলাফল ছাড়াই শেষ হয়েছে। রুদ্ধদ্বার কক্ষে অনুষ্ঠিত এসব আলোচনার বিষয়বস্তু প্রকাশ করা হচ্ছে না।
সূত্র : পার্সটুডে।