‘বিদ্রুপের শিকার’ শামির পাশে শচীন-শেবাগ-রাহুল গান্ধী

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের সুপার টুয়েলভে ভারতকে ১০ উইকেটে পরাজিত করেছে পাকিস্তান। এরপর থেকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভারতীয় ক্রিকেটারদের মুণ্ডুপাত করছেন সমর্থকরা। তবে তাদের আক্রমণের অন্যতম লক্ষ্যবস্তু হয়েছেন ভারতীয় পেস তারকা মোহাম্মদ শামি।

এ ঘটনায় শামির পাশে দাঁড়িয়েছেন সাবেক ও বর্তমান ক্রিকেটাররা।

শচীন টেন্ডুলকার টুইট করে বলেছেন, ”আমরা যখন টিম ইন্ডিয়াকে সমর্থন করি, তখন ভারতের প্রতিনিধি হিসেবে থাকা প্রতিটি প্লেয়ারকে সমর্থন করি। মোহাম্মদ শামি একজন নিবেদিতপ্রাণ বিশ্বমানের বোলার। বিশ্বের সব ক্রীড়াবিদের একেকটা দিন অফ ডে থাকে। শামিরও তাই ছিল। আমি শামি ও টিম ইন্ডিয়ার পাশে আছি।”

এদিকে, অত্যন্ত কড়াভাষায় প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন বীরেন্দ্র শেহবাগ। তিনিও টুইট করে বলেছেন, ”মোহাম্মদ শামির বিরুদ্ধে যে অনলাইন আক্রমণ হচ্ছে, তা ভয়াবহ। শামি একজন চ্যাম্পিয়ন। আর যে প্লেয়াররা ভারতের প্রতিনিধিত্ব করেন, তারা ওই অনলাইন মবের তুলনায় অনেক বেশি ভারতীয়। শামি, আমরা তোমার সঙ্গে আছি। পরের ম্যাচে দেখাও তোমার জাদু।”

কংগ্রেসের সাবেক সভাপতি রাহুল গান্ধীও শামির পাশে থাকার বার্তা দিয়েছেন। তিনিও টুইট করে বলেছেন, ”মোহাম্মদ শামি, আমরা সবাই আপনার পাশে আছি। আপনাকে যারা আক্রমণ করেছে, তাদের অন্তরে শুধু ঘৃণা আছে, কারণ, কেউ তাদের কখনো ভালোবাসা দেয়নি। ওদের আপনি ক্ষমা করুন।”

সাবেক ক্রিকেটার ভিভিএস লক্ষ্মণও শামির বিরুদ্ধে সামাজিক মাধ্যমে বিষোদ্গারে ক্ষুব্ধ। তিনি টুইট করে বলেছেন, ”গত আট বছর ধরে শামি অনেক নজরকাড়া পারফরমেন্স উপহার দিয়েছেন। ভারতকে জিততে সাহায্য করেছেন। একটা পারফরম্যান্স দিয়ে তার বিচার হয় না। আমার শুভকামনা তার প্রতি রয়েছে। আমি সব ক্রিকেটভক্তের কাছে অনুরোধ করছি, শামির পাশে দাঁড়ান। ভারতীয় দলের পাশে দাঁড়ান।”

লেগ স্পিনার চাহাল সংক্ষিপ্ত একলাইনের টুইট করে বলেছেন, ”আমরা তোমার পাশে আছি, শামি ভাইয়া।”

অফ স্পিনার হরভজন সিংয়েরও সংক্ষিপ্ত প্রতিক্রিয়া, ”আমরা তোমাকে ভালোবাসি শামি।”

সাবেক ভারতীয় ক্যাপ্টেন আজহারউদ্দিন বলেছেন, ”খেলায় হার-জিত আছে। শামির বিরুদ্ধে ব্যক্তিগত আক্রমণ একেবারেই কাম্য নয়। আমি শামির পাশে দাঁড়াচ্ছি।”

ইরফান পাঠান টুইট করে বলেছেন, ”আমিও ভারত-পাকিস্তান ম্যাচ খেলেছি। ম্যাচ হেরেছি। কিন্তু আমায় কেউ পাকিস্তান চলে যেতে বলেনি। এই কুৎসা অবিলম্বে বন্ধ হোক।”

গত রবিবার পাকিস্তানের একটা উইকেটও নিতে পারেননি ভারতীয় বোলাররা। বুমরা, ভুবনেশ্বর, জাদেজা, বরুণ সকলেই ব্যর্থ। কিন্তু সামাজিক মাধ্যমে নিশানা করা হচ্ছে শামিকে।

ওই দিন ভারতীয় বোলারদের মধ্যে সবচেয়ে খরুচে ছিলেন মোহাম্মদ শামি। ৩.৫ ওভারে ৪৩ রান দিয়েছেন। অর্থাৎ ওভারপ্রতি ১১ রানের বেশি। এতেই শামির ওপর ক্ষিপ্ত ভারতের উগ্র সমর্থকেরা।

শামির ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্টে গিয়ে একজন লিখেছেন ‘পাকিস্তানের দ্বাদশ খেলোয়াড়’। আরেকজন লিখেছেন, ‘বিশ্বাসঘাতক, নিজের ক্ষমতা দেখিয়ে দিলে।’ আরেক সমর্থক লেখেন ‘ভারতীয় দলের পাকিস্তানি ক্রিকেটার।’