প্রেসিডেন্ট শি জিনপিংয়ের নিপীড়নের ভয়ে পালাচ্ছেন চীনারা

শি জিনপিংয়ের নিপীড়নের রাজত্ব থেকে দেশ ছেড়ে পালিয়ে যাচ্ছে চীনা জনগণ। তারা গণতান্ত্রিক দেশগুলোতে আশ্রয় চাইছে। ২০১২ সালে শি জিনপিং ক্ষমতায় আসার পর থেকে এ পর্যন্ত ৬ লাখ ১৩ হাজার চীনা নাগরিক বিভিন্ন দেশে আশ্রয়ের আবেদন করেছেন।

জাতিসংঘের শরণার্থী বিষয়ক হাই কমিশনারের (ইউএনএইচসিআর) সর্বশেষ তথ্যে এ চিত্র তুলে ধরা হয়েছে।

ডব্লিউআইওএনর পালকি শর্মা বলেন, চীনা জনগণ আশঙ্কা করছে, যদি কাউকে শাসকদের জন্য হুমকি বলে মনে করা হয়, তাহলে রাষ্ট্র তাকে টার্গেট করবে।

তিনি আরও বলেন, চীনা জনগণ দেশ ছেড়ে পালিয়ে যাচ্ছে। তারা গণতান্ত্রিক দেশগুলোতে আশ্রয় চাইছে। শি দায়িত্ব গ্রহণের পর থেকে চীন থেকে বার্ষিক আশ্রয় প্রার্থীর সংখ্যা ছয় গুণেরও বেশি বৃদ্ধি পেয়েছে।

তিনি আরও বলেন, অন্তত এক মিলিয়ন উইগুর মুসলমানকে গণকারাগারে আটক করা হয়েছে, বেইজিং যাকে পুনঃশিক্ষা শিবির বলে দাবি করে থাকে।

সম্প্রতি চীনের অন্যতম বৃহৎ বেসরকারি কৃষি ব্যবসা পরিচালনাকারী সান দাউকে ১৮ বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

ওই কৃষি মোগলকে জনসমাবেশ করে উসকানি ছড়ানোর জন্য দোষী সাব্যস্ত করা হয়েছিল। একই অভিযোগে প্রায়শই ভিন্নমতাবলম্বী এবং অ্যাকটিভিস্টদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হয়।

ডব্লিউআইওএন প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, কোটিপতি থেকে গরিব, শির নিপীড়নের হাত থেকে কেউ রক্ষা পাচ্ছে না।