নোয়াখালীতে সহিংসতার ঘটনায় জবানবন্দিতে বিএনপির বুলুসহ ১৫ জনের নাম

নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ উপজেলার চৌমুহনীতে পূজামণ্ডপ ও মন্দিরে হামলা-ভাঙচুরের ঘটনায় উসকানিদাতা হিসেবে দায় স্বীকার করেছেন জেলা স্বেচ্ছাসেবকদলের সহ-সভাপতি ফয়সল ইনাম কমল (৩৯)। জবানবন্দিতে ফয়সাল ইনাম কমল বিএনপির কেন্দ্রীয় ভাইস চেয়ারম্যান বরকত উল্যাহ বুলুসহ ১৫ জনের সম্পৃক্ততার কথা বলেছেন।

আজ মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১১টায় জেলা পুলিশ সুপার (এসপি) শহীদুল ইসলাম সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান।

গতকাল সোমবার বিকেলে সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ সাঈদীন নাঁহীর আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন ফয়সাল ইনাম কমল।

উল্লেখ্য, নোয়াখালীতে মন্দির হামলা ভাংচুরের ঘটনায় ও ফেসবুকে উসকানিমূলক প্রচারণার অভিযোগে জেলা স্বেচ্ছাসেবকদলের সহ-সভাপতি ফয়সল ইনাম কমল (৩৯) ও সেনবাগ উপজেলার বীজবাগ ইউনিয়ন সাবেক চেয়ারম্যান ও জামায়াত নেতা হারুনুর রশিদ (৪৮) সহ ১১ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। এই নিয়ে বেগমগঞ্জে ১৩৫ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। পুলিশ সুপার জানান, কুমিল্লার ঘটনায় উসকানিমূলক বক্তব্য ফেসবুকে প্রচারসহ ঘটনার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়েছে। ফয়সল ইনাম কমলের বিরুদ্ধে ৩২টি মামলাসহ বহু অভিযোগ রয়েছে।