দিল্লিতে বঙ্গবন্ধু চেয়ার প্রতিষ্ঠায় সমঝোতা স্বাক্ষর

ইন্ডিয়ান কাউন্সিল ফর কালচারাল রিলেশনস (আইসিসিআর) ভারতের দিল্লি বিশ্ববিদ্যালয়ে বঙ্গবন্ধু চেয়ার প্রতিষ্ঠায় সমঝোতা স্বাক্ষর হলো আজ বিকেলে।

বাংলাদেশের স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী ও বাংলাদেশ ভারতের কূটনৈতিক সম্পর্কের ৫০ বছর পূর্তি উপলক্ষে এবং জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সম্মানে এই চেয়ার প্রতিষ্ঠা করা হয়।

আজ বিকেলে আইসিসিআর মিলনায়তনে সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর করেন আইসিসিআর এর মহাপরিচালক দীনেশ কে পাটনায়েক এবং দিল্লি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত উপাচার্য অধ্যাপক পি সি যোশি।

এ সময়ে উপস্থিত ছিলেন নয়াদিল্লিতে বাংলাদেশ দূতাবাসের হাই কমিশনার মোহাম্মদ ইমরান ও আইসিসিআর এর প্রেসিডেন্ট বিনয় শেহেশারবুদ্দি এবং আইসিসিআর ও বাংলাদেশ হাই কমিশনের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ। বাংলাদেশে অবস্থানরত ভারতীয় হাই কমিশনার বিক্রম দোরাইস্বামী ভার্চুয়াল অনুষ্ঠানে যোগ দেন।

চলতি বছরের মার্চে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বাংলাদেশ সফরের সময় করা একটি সমঝোতার ভিত্তিতে আজকের এ সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত হয়। উল্লেখ্য আগামী ৫ শিক্ষা বর্ষের জন্য এই সমঝোতা চুক্তি কার্যকর থাকবে।

বঙ্গবন্ধু চেয়ার প্রতিষ্ঠার উদ্দেশ্য হবে ভারতের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ প্রতিবেশি দেশ বাংলাদেশের উন্নয়নকে আরো ভালভাবে জানা এবং এর মধ্য দিয়ে দুই দেশের ঐতিহাসিক ও সাংস্কৃতিক বন্ধন ভাগ করে নেওয়ার মধ্য দিয়ে শিক্ষা, শিল্প ও সাংস্কৃতিক বিনিময় শক্তিশালী করা।

বাংলাদেশ দূতাবাসের হাই কমিশনার মোহাম্মদ ইমরান বলেন, বঙ্গবন্ধু চেয়ার প্রতিষ্ঠা একটি সময়োপযোগী পদক্ষেপ। আমি বিশ্বাস করি, বঙ্গবন্ধু চেয়ার প্রতিষ্ঠার মধ্য দিয়ে বাংলাদেশ-ভারতের মধ্যকার বুদ্ধিবৃত্তিক চর্চা এবং দুই দেশের মানুষের মধ্যে সম্পর্ক আরও দৃঢ় হবে।

তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিংশ শতাব্দীর এক অবিসংবাদিত নেতা হিসেবে বিশ্বে নন্দিত নেতা হিসেবে আবির্ভূত হন। ফিদেল কাস্ত্রো যাকে হিমালয়ের সঙ্গে তুলনা করেছিলেন।