তালেবানের সঙ্গে নতুন সম্পর্ক প্রতিষ্ঠায় যে দুই শর্ত দিল আমেরিকা

দীর্ঘ ২০ বছর ফের আফগানিস্তান দখল করে নিয়েছে তালেবান। আমেরিকা দেশটি থেকে নিজেদের সৈন্য প্রত্যাহার করে নিতে না নিতেই ক্ষমতাসীন সরকারকে হটিয়ে ক্ষমতার মসনদ দখল করে নেয় বিদ্রোহী গোষ্ঠীটি।

পরিস্থিতি বিবেচনায় নিজেদের কূটনৈতিক মিশন স্থগিত করে সংশ্লিষ্ট সবাইকে আফগানিস্তান থেকে সরিয়ে নিচ্ছে আমেরিকা।

সেই সঙ্গে তালেবান সরকারের সঙ্গে শর্তসাপেক্ষে কাজ করার ও ভবিষ্যৎ আফগান সরকারকে স্বীকৃতি দেওয়ার কথা জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র।

স্থানীয় সময় রবিবার সিএনএনকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে এ অবস্থানের কথা জানান যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্থনি ব্লিনকেন।

তিনি বলেন, ‘ভবিষ্যৎ আফগান সরকার তার জনগণের মৌলিক অধিকার সমুন্নত রাখলে ও সন্ত্রাসীদের আশ্রয় না দিলে তার সঙ্গে আমরা কাজ করতে পারি এবং সরকারকে স্বীকৃতি দিতে পারি।’

তিনি বলেন, তালেবান তাদের দেশের জনগণ- নির্দিষ্ট করে বললে নারী ও কিশোরীদের মৌলিক অধিকারের প্রতি শ্রদ্ধা দেখালে এবং সন্ত্রাসীদের আশ্রয় না দিলে তাদের সঙ্গে কাজ করতে ইচ্ছুক আমেরিকা।

তালেবানের অগ্রযাত্রার মুখে দেশ থেকে পালিয়ে গেছেন প্রেসিডেন্ট আশরাফ গনি। বর্তমানে তালেবানের হাতে আনুষ্ঠানিকভাবে ক্ষমতা হস্তান্তরের প্রক্রিয়া চলছে।

এদিকে তালেবান সরকারের সঙ্গে ‘বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক’ চায় বলে জানিয়েছে চীন। এছাড়া রাশিয়া, ইরান এবং পাকিস্তানও তালেবান সরকারকে স্বীকৃতি দেওয়ার ইঙ্গিত দিয়েছে।