জরুরি ভিত্তিতে জনসনের টিকার অনুমোদন দিল ভারত

করোনাভাইরাস প্রতিরোধে যুক্তরাষ্ট্রের জনসন অ্যান্ড জনসনের তৈরি কোভিডের এক ডোজের টিকা জরুরি ভিত্তিতে ব্যবহারের অনুমোদন দিয়েছে ভারত।

সংস্থাটির দাবি, তাদের তৈরি একটি টিকাই করোনা প্রতিরোধ করতে সক্ষম। করোনার তৃতীয় ঢেউ আছড়ে পড়া নিয়ে যখন সতর্ক করছেন বিশেষজ্ঞরা, সেই সময় জরুরি ভিত্তিতে ব্যবহারের জন্য জনসনের টিকাকে ছাড়পত্র দিয়েছে দেশটির কেন্দ্রীয় সরকার।

শনিবার এক টুইট করে ভারতের কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী মনসুখ মাণ্ডবিয়া বলেন, ‘ভারত নিজেদের ঝুলিতে টিকার সংখ্যা বাড়িয়েছে। জনসন অ্যান্ড জনসনের এক ডোজের টিকার জরুরি ব্যবহারের অনুমতি দেওয়া হয়েছে। এখন ভারতের হাতে ব্যবহারের জন্য পাঁচটি টিকা আছে। মহামারি করোনার বিরুদ্ধে লড়াইয়ে এটা আমাদের সাহায্য করবে।’

কেন্দ্রীয় সরকার জানিয়েছে, হায়দরাবাদের বায়োলজিক্যাল ই-লিমিটেড-এর সঙ্গে যৌথ অংশীদারত্বের ভিত্তিতে ভারতে টিকা উৎপাদন করবে যুক্তরাষ্ট্রের এই সংস্থাটি। ১৮ বছরের ঊর্ধ্বে টিকাকরণের ক্ষেত্রে তাদের তৈরি টিকা ব্যবহার করা হবে।

গত ৫ আগস্ট ভারতে জরুরিভিত্তিতে ব্যবহারের অনুমতি চেয়ে আবেদন করেছিল জনসন অ্যান্ড জনসন। এর আগে জনসনের পক্ষ থেকে দাবি করা হয়, তাদের টিকা ভারতে প্রথম শনাক্ত করোনার অতিসংক্রামক ডেল্টা ধরনকে প্রতিহত করতে সক্ষম।

কোভিড প্রতিরোধে এই নিয়ে পাঁচটি টিকা এল ভারতের হাতে-সিরাম ইনস্টিটিউটের কোভিশিল্ড, ভারত বায়োটেকের কোভ্যাক্সিন, রাশিয়ার স্পুটনিক-ভি, যুক্তরাষ্ট্রের মডার্না এবং জনসন।