চীনের বিরুদ্ধে আফগানিস্তানের মাটি ব্যবহার হবে না, তালেবানের প্রতিশ্রুতি ব্যক্ত

সম্প্রতি আফগানিস্তান থেকে সৈন্য প্রত্যাহার করেছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। ইতোমধ্যে ৯৫ শতাংশ সৈন্যই সরিয়ে নিয়েছে আমেরিকা। সেই সঙ্গে দেশটির মাটি থেকে প্রত্যাহার করে নেওয়া ন্যাটো জোটভুক্ত সেনাদেরও।

মার্কিন বাহিনী চলে যেতেই একের পর এক আফগানিস্তানের অঞ্চল দখল করে নিচ্ছে বিদ্রোহী গোষ্ঠী তালেবান। শুধু তা-ই নয়, এরই মধ্যে তালেবান ঘোষণা দিল- আফগানিস্তানের মাটি চীনের বিরুদ্ধে কাউকে ব্যবহার করতে দেবে না।

তালেবান মুখপাত্রের টুইটের বরাতে বার্তা সংস্থা রয়টার্স এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে।

দুই দিনের চীন সফরে ৯ সদস্যের একটি তালেবান প্রতিনিধিদল চীনা পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়াং ইর সঙ্গে সাক্ষাৎ করেছে। দুইপক্ষের বৈঠকে আফগানিস্তানের শান্তিপ্রক্রিয়া ও নিরাপত্তা-সংক্রান্ত বিষয় আলোচিত হয়েছে। এ বৈঠক নিয়ে বুধবার চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ও তালেবানের কাছ থেকে পৃথক বক্তব্য এসেছে।

চীনা পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের বক্তব্যে বলা হয়, তালেবান প্রতিনিধিদের বেইজিং বলেছে যে তারা আশা করে, সশস্ত্র গোষ্ঠীটি আফগান যুদ্ধের পরিসমাপ্তি টানা ও দেশ পুনর্গঠনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে।

একই সঙ্গে চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেছেন, তিনি আশা করেন, তালেবান ইস্ট তুর্কেস্তান ইসলামিক মুভমেন্টকে দমন করবে। এই গোষ্ঠীকে চীনে তাদের জাতীয় নিরাপত্তার জন্য সরাসরি হুমকি মনে করে। চীনের অভিযোগ, এই গোষ্ঠী তাদের জিনজিয়াং অঞ্চলে সন্ত্রাসী তৎপরতায় জড়িত।

তালেবান প্রতিনিধিদল বেইজিংকে আশ্বস্ত করে বলেছে, তারা কাউকে চীনের বিরুদ্ধে আফগানিস্তানের মাটি ব্যবহার করতে দেবে না।