চীনের পর এবার বাইডেনকে এক হাত নিল ফ্রান্স

সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য ও অস্ট্রেলিয়ার মধ্যে ঐতিহাসিক এক নিরাপত্তা চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছে, যা অকাস (Aukus) চুক্তি নামে পরিচিত। এই চুক্তির আওতায় যুক্তরাষ্ট্র ও যুক্তরাজ্য অস্ট্রেলিয়াকে পরমাণু চালিত সাবমেরিন নির্মাণের প্রযুক্তি দিয়ে সহযোগিতা করবে।

এই চুক্তি নিয়ে তীব্র সমালোচনা করেছে। বলেছে, এটি ‘চরম দায়িত্বজ্ঞানহীন’ ও ‘সংকীর্ণ মানসিকতা’।

চীনের পর এবার এই পদক্ষেপের সমালোচনা করল পশ্চিমা আরেক মিত্র ফ্রান্সও। দেশটি বলেছে, মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন তার পূর্বসূরি ডোনাল্ড ট্রাম্পের মতো আচরণ করছেন। খবর এএফপি, আল-জাজিরা ও রয়টার্সের

বিশ্লেষকরা বলছেন, ইন্দো-প্যাসিফিক অঞ্চলের নিরাপত্তার জন্য অকাস (Aukus) নামের চুক্তিটি দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর তিন দেশের মধ্যে সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য নিরাপত্তা ব্যবস্থাপনা। এর অর্থ হলো অস্ট্রেলিয়া হবে পরমাণু সাবমেরিন সমৃদ্ধ সপ্তম দেশ।

ফ্রান্সের দাবি, এই চুক্তির ফলে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে পশ্চিমা দেশটি। কারণ, অস্ট্রেলিয়ার সঙ্গে দেশটির সাবমেরিন বিষয়ে একটি চুক্তি হয়েছিল। ওই চুক্তির আর্থিক মূল্য ছিল চার হাজার কোটি মার্কিন ডলার।

এ প্রসঙ্গে ফরাসি পররাষ্ট্রমন্ত্রী জ্যঁ-ইভেস লে ড্রিয়ান বলেন, “এ রকম নিষ্ঠুর, একতরফা ও হুটহাট সিদ্ধান্ত আমাকে ডোনাল্ড ট্রাম্পের কথা মনে করিয়ে দিচ্ছে। তিনি এমন সিদ্ধান্ত নিতেন। এ সিদ্ধান্তের ফলে আমি ক্ষুব্ধ ও বিরক্ত। এটা মিত্রদের সঙ্গে করা যায় না।”

ফরাসি পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, “এর মাধ্যমে পেছন থেকে ছুরি মারা হয়েছে। আমরা অস্ট্রেলিয়ার সঙ্গে একটি বিশ্বাসের সম্পর্ক স্থাপন করেছিলাম। অস্ট্রেলিয়া সেই বিশ্বাস ভেঙে দিয়েছে।”