ক্ষমতা জনতার হাতে ফিরেছে বলেই দেশের উন্নয়ন হচ্ছে : প্রধানমন্ত্রী

ক্ষমতা জনতার হাতে ফিরেছে বলেই দেশের উন্নয়ন করা সম্ভব হচ্ছে এবং এর সুফল দেশের সাধারণ মানুষ পাচ্ছে বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

আজ মঙ্গলবার সকালে (২৯ ডিসেম্বর) জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের (এনইসি) সভায় তিনি এসব কথা বলেন। প্রধানমন্ত্রী গণভবন থেকে শেরে বাংলা নগর এনইসি সম্মেলন কেন্দ্রে ভার্চুয়ালি যুক্ত ছিলেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, অগণতান্ত্রিক ধারার সরকার ক্ষমতায় ছিল বলেই স্বাধীন দেশ হওয়ার পরও উন্নয়ন হয়নি। স্বাধীন দেশ হয়েও বহির্বিশ্বের কাছে হাত পাতা, খুবই লজ্জাজনক অধ্যায় ছিল।

তিনি বলেন, আগামী বছর থেকেই অষ্টম পঞ্চবার্ষিকী পরিকল্পনা বাস্তবায়ন শুরু হবে। জাতির পিতার যে স্বপ্ন ক্ষুধা ও দারিদ্রমুক্ত বাংলাদেশ গড়ে তোলা সে লক্ষ্য নিয়ে আমরা কাজ করে যাচ্ছি।

শেখ হাসিনা বলেন, ২০২১-৪১ প্রেক্ষিত পরিকল্পনার অংশ হিসেবে অষ্টম পঞ্চবার্ষিকী পরিকল্পনায় দেশেকে ধাপে ধাপে উন্নয়নের পথে এগিয়ে নিতে হবে। দীর্ঘমেয়াদী প্রেক্ষিত পরিকল্পনা এবং বিভিন্ন পঞ্চবার্ষিকী পরিকল্পনায় দেশকে উন্নত ও সমৃদ্ধ দেশ হিসেবে গড়ে তোলা সম্ভব।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, দেশকে উন্নত করতে আরও বেশ কয়েকটি পঞ্চবার্ষিক পরিকল্পনা গ্রহণ করতে হবে। অষ্টম পঞ্চবার্ষিকী পরিকল্পনা বাস্তবায়নের কাজ ২০২১ সাল থেকেই শুরু হবে। জাতিসংঘ ঘোষিত টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রার যে সমস্ত বিষয় বাংলাদেশের জন্য প্রযোজ্য, সেগুলো বাস্তবায়নে সরকার সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়েছে।

স্বাধীনতার পর বঙ্গবন্ধু সরকারের নেয়া দীর্ঘমেয়াদী উন্নয়ন পরিকল্পনার কথা উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, বঙ্গবন্ধু সরকারের অনুসরণে ৯৬ সালে ক্ষমতায় এসে দেশকে দ্রুত এগিয়ে নেয়ার লক্ষ্যে আওয়ামী লীগ সরকার আবারও পঞ্চবার্ষিক পরিকল্পনা প্রণয়ন করে। তবে ৭৫ পরবর্তী সময়ে দেশে গণতন্ত্র ছিল না, ষড়যন্ত্রের রাজনীতি শুরু হয়েছিল এবং মিলিটারি ডিক্টেটররা একের পর একক্ষমতায় এসেছিল, সে কারণে দেশের কাঙ্ক্ষিত উন্নয়ন হয়নি।

তিনি বলেন, ১৯৯৭-২০০২ মেয়াদী এ পরিকল্পনা বাস্তবায়নের কাজ শুরু করার ফলে দেশ উন্নয়নের পথে এগিয়ে যায় এবং দেশের মানুষ এর সুফল পেতে শুরু করে। আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় এসে জনতার গণতান্ত্রিক অধিকার এবং ক্ষমতা  জনগণের হাতে দিতে পারায় দেশের উন্নয়নের গতিধারা অব্যাহত রাখা সম্ভব হয় বলে জানান তিনি।