ক্রিস গেইলকে ছেড়ে দেবে নাকি ধরে রাখবে পাঞ্জাব?

বয়সকে তুড়ি মেরে উড়িয়ে দিয়ে ক্রিকেট মাঠে রাজত্ব করে যাচ্ছেন ‘ইউনিভার্স বস’ ক্রিস গেইল। অসুস্থতার কারণে সদ্য সমাপ্ত আইপিএলে তিনি সব ম্যাচে খেলার সুযোগ পাননি। তবে টুর্নামেন্টের দ্বিতীয়ার্ধ ব্যাট হাতে মাতিয়ে দিয়েছেন।  আইপিএল শেষের পরেই গেইলের ক্যারিয়ার নিয়ে প্রশ্ন ওঠে গিয়েছিল। অনেকর মনেই সংশয় ছিল যে, চল্লিশোর্ধ গেইল কি আর আইপিএলে খেলতে রাজি হবেন? কিংবা তাকে কি আর দলে রাখবে কিংস ইলেভেন পাঞ্জাব ম্যানেজম্যান্ট?

এসব সংশয়কে তুড়ি মেরে উড়িয়ে দিয়েই কিংস ম্যানেজমেন্ট জানিয়েছে, আগামী আইপিএলেও প্রথম ম্যাচ থেকে খেলবেন ক্যারিবীয় সুপারস্টার। পাঞ্জাবের অন্যতম মালিক নেস ওয়াদিয়া বলেন, ‘গেইলকে বাইরে রাখার সিদ্ধান্তটা ছিল টিম ম্যানেজমেন্টের। দলের পক্ষে যেটা ভালো হবে, সেটাই করা হয়েছে। অভিজ্ঞ ক্রিকেটারদের ব্যাক করা সবসময় প্রয়োজন। গেইল দেখিয়ে দিয়েছে বয়স হলেও সে টুর্নামেন্টের সব ম্যাচ খেলতে পারে। পরের সিজনে সে সব ম্যাচেই খেলবে।’

এবারের টুর্নামেন্টের প্রথম পাঁচ ম্যাচে গেইল প্রথম একাদশে সুযোগ পাননি। তারপরের দুই ম্যাচে ফুড পয়জনিংয়ের শিকার হয়ে খেলতে পারেননি। কিন্তু শেষ ৭ ম্যাচে ব্যাট হাতে তাণ্ডব চালিয়ে ৪১.১৪ গড়ে করেছেন ২৮৮ রান। এর মধ্যে রাজস্থান রয়্যালসের বিপক্ষে ৯৯ রানের বিভীষিকাময় ইনিংসও আছে। গেইলের পাশাপাশি অধিনায়ক আর কোচ নিয়েও কথা বলেন নেস ওয়াদিয়া। তার কথায় স্পষ্ট, অনিল কুম্বলে আর লোকেশ রাহুলের চাকরি আগামীতেও থাকছে।

ওয়াদিয়া বলেছেন, ‘কুম্বলের সঙ্গে বসে আমরা তিন বছরের পরিকল্পনা করেছি। এবারের আসরে নতুন করে দল সাজিয়ে ৬ষ্ঠ স্থানে থেকে আমরা শেষ করেছি। মাত্র ১ ম্যাচের জন্য প্লে অফে উঠতে পারিনি। লোকেশ আমাদের সঙ্গে ৩ বছর ধরে আছে। তাকে পেতে আমরা নিলামে অনেক যুদ্ধ করেছি। লোকেশ সেই সিদ্ধান্তকে সঠিক প্রমাণ করেছে। মিডল অর্ডার ঠিক মত পারফর্ম না করলে টপ অর্ডারের ওপর চাপ বেড়ে যায়। আমাদের আপাতত বেশ কিছু সমস্যা মেরামত করতে হবে।’