ইংল্যান্ডের বিপক্ষে সেই ইচ্ছে পূর্ণ হলো না ম্যরাডোনার

প্রতিপক্ষের পাঁচজনকে বোকা বানিয়ে এক গোল করেছিলেন ডিয়োগো ম্যারাডোনা। ফিফা ডট কমে গোলটিকে শতাব্দীর সেরা গোল হিসাবে নির্বাচিত করে ভক্তরা। ১৯৮৬ সালের বিশ্বকাপের ইংলিশদের বিরুদ্ধে ওই ম্যাচেই বিতর্কিত এক গোল করেছিলেন তিনি। যাকে ‘হ্যান্ড অব গড’ বলে আখ্যায়িত করা হয়। ফুটবলের সেই কিংবদন্তি ম্যারাডোনা আর নেই। হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে বুধবার নিজ বাসায় মারা যান তিনি। বেশ কিছুদিন ধরেই অসুস্থ ছিলেন ৮৬ সালের বিশ্বকাপজয়ী এ কিংবদন্তি।

৩৪ বছর আগে হাত দিয়ে করা ওই গোলটি নিয়ে নানা আলোচনা থাকলেও আক্ষেপ ছিল না আর্জেন্টাইন কিংবদন্তি ম্যারাডোনার। গত ৩০ অক্টোবর নিজের ৬০ তম জন্মদিন পালন করেছিলেন ফুটবল ঈশ্বর ম্যারাডোনা। আর্জেন্টিনাকে অনেকটা একক প্রচেষ্টায় ‘৮৬ বিশ্বকাপ এনে দেওয়া এই কিংবদন্তির জন্য বিশেষ সংখ্যা বের করেছিল ফ্রেঞ্চ ফুটবল। ১৯৮৬ বিশ্বকাপের কোয়ার্টার-ফাইনালে ২-১ গোলে ইংল্যান্ডকে হারিয়েছিল আর্জেন্টিনা। ওই ম্যাচে দলের দুটি গোলই করেছিলেন ম্যারাডোনা। এর মাঝে প্রথম গোলটিই ইতিহাস বিখ্যাত। যে গোলটি তিনি গোলরক্ষক পিটার শিলটনকে বোকা বানিয়ে বাম হাত দিয়ে সবার চোখের আড়ালে করেছিলেন।

নিজের ৬০ তম জন্মদিনের আগে ফ্রেঞ্চ ফুটবল ম্যারাডোনার কাছে প্রশ্ন রেখেছিল, ‘৬০তম জন্মদিনে কোন উপহার চান?’ এমন প্রশ্নের জবাবে ইংলিশদের সেই পুরনো দুঃখ ফের জাগিয়ে দিয়ে ম্যারাডোনা বলেন, ‘ইংল্যান্ডের জালে আরেকটি গোল করার স্বপ্ন দেখি। এবার ডান হাত দিয়ে।’

সময়ের দুই সেরা ফুটবলার লিওনেল মেসি ও ক্রিস্তিয়ানো রোনালদোর শ্রেষ্টত্ব নিয়েও কথা বলেছেন ম্যারাডোনা। গত এক যুগ ধরে ফুটবলবিশ্বে রাজত্ব করে যাওয়া মেসি আর রোনালদোকে নিয়ে তিনি বলেন, ‘রোনালদো ও মেসি, আমার কাছে এই দুজন সবার উপরে। তাদের মতো আর কাউকে আমি দেখি না। তারা দুজন যা কিছু অর্জন করেছে, তার অর্ধেকও বাকিদের কেউ পারেনি।’